1. info@www.skytvnews24.com : Sky TV News 24 :
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:০৫ অপরাহ্ন

বোরহানউদ্দিনের মেঘনায় জব্দকৃত ইলিশ আত্মসাতের অভিযোগ নৌ-পুলিশের বিরুদ্ধে

প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত: রবিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৪৭ বার পড়া হয়েছে

বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধিঃ ভোলার বোরহানউদ্দিনে হাকিমুদ্দিন নৌ-পুলিশ ফাঁড়ীর এএসআই মাহবুবের বিরুদ্ধে জেলেদের কাছ থেকে চাঁদাবাজী,অভিযানে জব্দকৃত মাছ আত্নসাত,জব্দকৃত জাল বিক্রি সহ বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় জেলেরা জানান, কয়েকদিন পরপরই হাকিমুদ্দিন নৌ পুলিশের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ করে আসছেন জেলেরা। নৌ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ পৌছালে তারা বিভিন্ন সময় নৌ পুলিশের ফাড়ির অনেক সদস্য কে বদলী সহ বিভিন্ন ব্যবস্থা নিয়েছেন। এরপর কয়েকদিন তারা চুপ চাপ থাকলেও নৌ-পুলিশের এএসআই মাহবুব হাকিমুদ্দিন পুলিশ ফাঁড়ীতে যোগদানের পরেই
আবারো সেই ভয়াবহ কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক জেলে আরো অভিযোগ করেন, এএসআই মাহবুব ফাঁড়ীতে যোগদানের পর থেকেই তার চাঁদাবাজীতে অতিষ্ঠ জেলেরা। তবে নদীতে মাছের ব্যবসা করায় মিথ্যা মামলায় দিয়ে হয়রানি করার ভয়ে কিছু বলতে পারেন না তারা।
গত ২১ অক্টোবর (শনিবার) রাতে বিপুল পরিমাণে মাছ,জাল ও ১ টি নৌকা জব্দ করেন এএসআই মাহবুব। জব্দকৃত মাছ নিজেদের মধ্যে ভাগ ভাটোয়ারা করেন বিলির নামে নাম মাত্র একটি মাদ্রাসার রিসিট সংগ্রহ করে কতিপয় ব্যক্তিকে কিছু মাছ বিতরণ করেন। বাকি মাছ গুলো নিজের আয়ত্তে রেখে দেন এবং এলাকার প্রভাবশালী সহ নিজরাই নিয়ে যান।
এদিকে এ বিষয়ে সাংবাদিকরা লেখালেখি শুরু করলে তরিঘরি করে পুরনো কিছু জাল ১ দিন পর ২২ অক্টোবর (রবিবার) বিকালে আগুনে পুড়ান এএসআই মাহবুব সহ তার সাথীরা। যদিও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কিংবা আদালতের আদেশ ব্যতীত মাছ বিতরণ
জাল পোড়ানো বা ধ্বংস করা আইনে বহির্ভূত বলে জানান জেলা মৎস্য কর্মকতা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এএসআই মাহবুব মাছ,জাল ও নৌকা জব্দ করার কথা স্বীকার করে বলেন, মাছ এতিম খানায় বিতরণ করেছি কিন্ত অভিযোগের বিষয়ে কোন সদুত্তর পাওয়া যায় নি তার কাছ থেকে।
জনপ্রতিনিধিবৃন্দ ও স্থানীয় জেলেরা বলেন, নৌ পুলিশ ফাঁড়ীতে আই’সি না থাকায় যে যার মতো কাজ করছে। অবশ্যই জনস্বার্থে নৌ পুলিশের বদনাম এড়াতে এএসআই মাহবুব এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ সহ নতুন আইসি ফাড়িতে পোস্টিং করলে জনগণ উপকৃত হবে।

এ বিষয়ে বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান-উজ্জামান জানান, নৌ-পুলিশ কোন অভিযানেই আমাদের অবগত করেন না। তিনি আরো জানান, মাছ বিতরণ কিংবা জাল পোড়ানো বিষয়ে তাকে কিছু জানানো হয়নি। এ বিষয়ে আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে অচিরেই ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

ভোলা জেলা মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তা মোঃ আবুল কালাম আজাদ জানান, জব্দকৃত জাল ধ্বংস বা মাছ যদি তারা বিলি করে অবশ্যই নিবার্হী কর্মকতাকে জানোনো উচিত।তাদের অবগত না করে কোন কিছূ করা আইন বহির্ভূত।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বরিশাল নৌ-পুলিশের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কফিল উদ্দিন জানান, কোন একজন পুলিশ সদস্যর জন্য পুরো ডিপার্টমেন্ট কলুষিত হবে এটা আমরা চাই না। জেলেদের কাছ থেকে চাঁদাবাজীর অভিযোগ বা জব্দকৃত মাছ আত্মসাতের অভিযোগ প্রমানিত হলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
তিনি আরো জানান, খুব দ্রুতই হাকিমুদ্দিন নৌ পুলিশ ফাঁড়িতে একজন ইনচার্জ পাঠানো হবে।নদীতে অভিযান যাতে অব্যহত থাকে সে বিষয়ে নজরদারি করা হবে বলে ও জানান নৌ পুলিশ সুপার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯  

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং
error: Content is protected !!